এবার দেবীদূর্গার ঘোটকে আগমন, গমন করবে দোলায়

0

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ
গত দুবছর দুর্গাপূজা হলেও তা ছিল অনাড়ম্বর ও জাঁকজমকহীন। তবে করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে থাকায় এবার কিশোরগঞ্জে মহাধুমধামে দূর্গাপুজা আয়োজনের প্রস্তুতি চলছে। মন্ডপগুলোতে চলছে সাজসজ্জা ও প্রতিমা তৈরির কাজ। সেখানে ধীরে ধীরে ফুটে উঠছে দেব-দেবীর প্রকৃত অবয়ব। এবার দেবীদূর্গা ঘোটকে আগমন ও দোলায় গমন করবে । ভক্তদের আশা, দেবীর আর্শিবাদে করোনা মহামারি থেকে মুক্ত হবে বিশ্ব।

যেন নতুন করে ফিরে এলো উৎসব। সেই আয়োজন চলছে মন্দিরগুলোতে। দেবী দূর্গা মর্তে আসছেন। তাই ভক্তদের যেন আর তর সইছে না। করোনা ভাইরাসের কারণে গত দুবছর পূজা হলেও, তা ছিল অনেকটাই শুধুই আনুষ্ঠানিকতা। এবার সেই অচলায়তন ভেঙে উৎসবমুখর পরিবেশে দুর্গাপূজার প্রস্তুতি চলছে। এরই মধ্যে বেশিরভাগ ম-পে প্রতিমা তৈরির কাজ শেষ পর্যায়ে রয়েছে। শুরু হয়েছে রঙের প্রলেপ দেওয়া। রঙতুলির আঁচড়ে ফুটে উঠছে দেবী দুর্গার অবয়ব। দুর্গার সঙ্গে স্থান পাচ্ছে লক্ষ্মী, সরস্বতী, কার্তিক ও গনেশের মুর্তিও।

দুবছর পর বড় পরিসরে পূজা আয়োজনের ফলে প্রতিমা শিল্পীরা খুশি হলেও তাদের আর আগের মতো আয়-রোজগার হচ্ছে না বলে অভিযোগ তাদের। মূর্তি তৈরির উপকরণের দাম বেড়ে যাওয়ায় সঙ্কটের মধ্যে কাজ করতে হচ্ছে তাদের। অনেকে আবার এই পেশা ছেড়ে চলে যাচ্ছে। এই অবস্থায় পেশাটি টিকিয়ে রাখতে সরকারের কাছে সহযোগিতা চেয়েছেন তারা।

দেবী দূর্গাকে বরণ করতে মুখিয়ে আছে ভক্তরা। ১১ অক্টোবর মহাষষ্ঠীর মাধ্যমে শুরু হচ্ছে দুর্গাপূজা। এবার দেবী দূর্গা ঘোড়ায় চড়ে মর্তে আসছেন। ফিরে যাবেন দোলায় চড়ে। ভক্তদের আশা, দেবীর আর্শিবাদে করোনা মহামারি থেকে মুক্ত হবে বিশ্ব। সুখ-সমৃদ্ধিতে ভরে উঠবে দেশ। আয়োজকরা জানিয়েছে, দুর্গাপূজায় স্বাস্থ্যবিধি মেনেই কঠোর নিরাপত্তায় শোভাযাত্রা, প্রসাদ বিতরণ ও আরতিসহ জমাকালো অনুষ্ঠান হবে। ঘাটতি থাকবে না সাংস্কৃতিক আয়োজনসহ ধর্মীয়পর্বগুলোতেও।

পুলিশ সুপার মাশরুকুর রহমান খালেদ বিপিএম (বার) জানান, কারোনার কারণে গতবছর জেলায় ৩৬৮ টি ম-পে পূজা হয়েছিল। এবার জেলায় ৪০৪টি পূজা মন্ডপে দূর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হবে। গুরুত্বপূর্ণ পূজা পন্ডপের সংখ্যা ১৫৫টি এবং সাধারণ পূজা মন্ডপের সংখ্যা ১৫৮টি। আইন শৃঙ্খলা অবনতি যেন না হয় সে ব্যাপারে পুলিশ গুরুত্ব সহকারে কাজ করছে।

Share.

Leave A Reply